ami-o-apu-web-series-review-myo
ami-o-apu-web-series-review-myo

“আমি ও অপু(Ami o apu)”:

সত্যজিৎ রায়ের পর “পথের পাঁচালি” আবার বড়ো পর্দায়, এবার পরিচালক সুমন মৈত্র। পরিচালকের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে অঙ্কিতা বারিক, রইলো কথোপকথন। (Edited excerpt)

-কেমন আছেন?

-হ্যাঁ, চলছে, যা situation সেই হিসেবে চলছে।

-2nd teaser এসে গেলো, এখন ব্যস্ত নিশ্চয়ই।

-Teaser release ঠিক আছে, just a teaser, যখন trailer আসবে ব্যস্ততা বাড়বে। একটু সময় নিয়ে promotion টা করছি, pandemic এর আগে থেকে শুরু করেছিলাম। মাঝখানে covid এর জন্য পিছিয়ে গেছে অনেকটা। এখন আবার একটু একটু করে “আমি ও অপু(Ami o apu)” build up করা শুরু করেছি, কারণ সিনেমা হল খুলে গেছে। ফলে সেই মতো আবার আজ শুরু করলাম, এরপর থার্ড Teaser আছে, কিছু posters আসবে official posters. তারপর talk shows আছে, making আছে, অনেক কিছু দিয়ে ছবিটা নিয়ে আসার চেষ্টা করছি।

-তাহলে “আমি ও অপু(Ami o apu)” কি বছরের শেষে দেখতে পাবো?

-হ্যাঁ পুজোর পর চেষ্টা আছে “আমি ও অপু(Ami o apu)” নিয়ে আসার, যদি 3rd wave বা serious কোনো pandemic situation না হয়।

-হঠাৎই প্ল্যান করলেন? পথের পাঁচালির মতো iconic ছবি নিয়ে কাজ করার, কিভাবে প্ল্যান করলেন?

আমি ও অপু(Ami o apu)

-মাথায় আসলো যে এরকম একটা ইন্টারেস্টিং গল্প, এতো ভালো একটা উপন্যাস, সেই উপন্যাসটা নিয়ে যদি আর একবার ভাবতে পারি আজকের সময় contemporary period এ দাঁড়িয়ে। গ্রাম বাংলা কেনো শহরে, ভারতবর্ষে বা পৃথিবীতে, ভাই বোনের সম্পর্ক, এই কেমিস্ট্রিটা এটাতো বাদ দেওয়া যায় না, এটা সর্বত্র। সেখানে অপু দুর্গা it’s immortal, ওটা বাঙালির emotion বলতে পারো, ওটা বাঙালির আবেগ বলতে পারো। সেই অপু দুর্গার সম্পর্কটা নিয়ে আমার মনে হয়েছিল আজকের সমাজে বলতেই পারি।

-হ্যাঁ।

-তো সেখান থেকে উপন্যাসটা নিয়ে ভাবনা চিন্তা করা, সেইখানেই সাহিত্যে জসীমউদ্দিন, জীবনানন্দ দাশ অনেকটা help করেছে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তো আছেনই: তাঁর কবিতা ছোটো গল্প উপন্যাস; সব মিলিয়ে একটা চেষ্টা করেছি।

-সত্যজিৎ রায়ের ছবির সাথে মিল কতোটা?

– না উনি বানিয়ে গেছেন পথের পাঁচালি, সেই জায়গা থেকে কোনও সম্পর্ক নেই আমি touch ও করিনি, ওটা touch করার সাহস তো নেই, প্রশ্নই ওঠেনা।

-ঠিকই…

-ওনাকে copy করব বা remake করব বা কোনো ভাবে ভাবব প্রশ্নই নেই, influence আছে হয়তো কিছু। ওটা বাঙালির কাছে একদম অন্য জায়গায় রয়েছে, আমি আমার মতো করে গল্পটা বলার চেষ্টা করছি।

-গল্পটা যখন দুর্গার দৃষ্টি দিয়ে দেখব তখন কি আরো mature হবে গল্পটা?

-definitely হবে। এটা এমন একটা কন্টেন্ট এমন একটা interpretation, এমন একটা narrative বা linear, যেটাই বলি না কেন যার গল্প বলার মধ্যে: আমি ও অপু(Ami o apu) এটাকে যদি analyse করো, তুমি নিজেকে দেখতে পাবে সেই জায়গায়। তুমি অপুকে কিভাবে দেখেছ, মানে আমি ও অপু(Ami o apu), দুর্গা কিভাবে দেখছে অপুকে, বা যে কটা চরিত্র আছে তারা কিভাবে দেখছে অপুকে। অপুকে সবাই relate করছে সবাই নিজের নিজের মতো করে। সবাই লিঙ্ক করবে নিজের নিজের মতো করে ছবিটাকে।

-দুর্গার যে painful সময়গুলো, পাড়া বেড়াতে গিয়ে গাল মন্দ খাচ্ছে বা বাড়ি ফিরে মায়ের কাছে বকা খাচ্ছে, সেই Situation গুলো দুর্গার দিক থেকে তুলে ধরা হচ্ছে?

-না দেখো, এটা না দেখলে বোঝা ব বোঝানো মুশকিল। উপন্যাসে দুর্গার জীবন কিভাবে উপস্থাপিত হয়েছে, বা সত্যজিৎ রায়ের ছবিতে কিভাবে উপস্থাপিত হয়েছে তা বাদে একটু নতুন ভাবে গল্প বলার চেষ্টা করেছি।

-হ্যাঁ, একদমই। সেটাই, তার এই মুহূর্তগুলো দুর্গার চোখ দিয়ে দেখলে কি আরো যন্ত্রণার হবে দৃশ্যগুলো?

-pain তো থাকবে, emotion এর যে নটা রস, সব গুলোই আছে।

-বেশ, পথের পাঁচালির একটা feminist adaptation বলতে পারি, ‘আমি ও অপু’ কে?

-একটা গ্রামের গল্প, সেরকম ভাবে দেখতে গেলে feminism তো আছে, সর্বজয়ার একটা presentation আছে, দুর্গার একটা নিজস্ব viewpoint আছে। কিন্তু ওই যে নিশ্চিন্দিপুরে ফেরা, নিশ্চিন্দিপুরের গল্প। In total যদি দেখো সবটাই হচ্ছে নিশ্চিন্দিপুর ঘিরে। অপুর বেঁচে থাকা, দুর্গার বেঁচে থাকা, মা বাবা সবটা মিলিয়েই।

– নিশ্চিন্দিপুর কোথায় খুঁজে পেলেন? শুটিং কোথায় করলেন?

-নিশ্চিন্দিপুর খুঁজে পেয়েছি অনেক জায়গায়, পেয়েছি উত্তর চব্বিশ পরগনায়, ওখানকার পুবালিতে, তারপর রাজবোলহাট হুগলিতে, জাহাঙ্গীর পাড়া,- ওখানে shooting হয়েছে। অনেকটা শুট হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরে।

-আচ্ছা। একটা দারুণ bgm শুনলাম 2টো teaser এই, মিউজিক নিয়ে কাজের experience কেমন?

-হ্যাঁ, bgm নিয়ে যখন ভাবা হয়েছে তখন থেকে মাথায় ছিল, ওনার একটা ফ্রেমও copy করব না, সেটা সত্যজিৎ রায় হোন, সেটা রবি শঙ্কর হোন: মানে কোনো ভাবেই frame copy হবে না। একটা frame ও copy না, inspiration আছে কিন্তু copy নেই। যেটা করে গেছেন সেটাকে আমরা টাচ করব না, ছোঁব না। কিন্তু সেই সময় সেই nostalgia, সেটাকে তুলে ধরতে গেলে যেভাবে করা যায় সেই ভাবেই করা। শুভ্র এত talented এত ভালো ভাবে recreate করেছে, বেশ ভালো।

-সিনেমায় গ্রাম্য পরিবেশে গ্রামের গান শোনা যেতে পারে?

-গান থাকবে কি না সেটা একটা আলাদা প্রেক্ষাপট, পথের পাঁচালিতেও কিন্তু গান ছিল না, background music টাকেই যদি lyrically ধরো ওটাই গান, ওটাই background score, ওটাই ওটাই ছবির music। আলাদা করে গান নেই আমি ও অপু(Ami o apu) ছবিতে।

-আচ্ছা। নাহ্! এর পর আলোচনা করতে থাকলে spoiler পেতে হবে।

-হ্যাঁ।

-এবার একটু সীমান্ত নিয়ে কথা বলি, theme কি?

-একদমই আলাদা, অপু যা শুনলে তার থেকে একদম আলাদা, অপু aesthetically, grammatically সিনেমার language নিয়ে আমি ও অপু(Ami o apu) ছবি। ওটার making এর একদম আলাদা একটা schooling আছে, আবার এটা একদম contemporary একটা অন্য জনরার থ্রিলার।

-সিনেমায় time space নিয়ে একটা কোনো ব্যাপার আছে, ব্যাপারটা নিয়ে একটু বলা যায়?

-হ্যাঁ, এই time space টাই তো দেখার, এটা বললেও বুঝবে না, যতক্ষন না দেখছ আমি ও অপু(Ami o apu) ছবিটা। Time আর space তোমাকে কোথায় দাঁড় করিয়ে দেয়, সেইটা দেখার। Time আর space টা জীবন থেকে হারিয়ে যায়, সেইটা খুঁজে বার করতে হবে।

-সীমান্ত এর শুটিং কতো দূর?

-shooting শেষ, post production এর কাজ চলছে।Recently গান ডাব করলাম, স্নিগ্ধজিৎ ভৌমিক আর অর্কদীপ মিশ্র গাইল বাপ্পাদিত্য শুভ্রের direction এ। আশা করছি আমরা ready হয়ে যাব post-পুজো প্ল্যান করবো।

কাদের দেখা যাবে মুখ হিসেবে?

মুখ হিসেবে দেখা যাবে, আছে পায়েল সরকার, সাহেব ভট্টাচার্য, মৈনাক ব্যানার্জি, রন জয়, সুদীপ মুখার্জি, সোনিয়া রায়, ঋষি রাজ ছাড়াও রয়েছে আরও অনেকে।

-2 টো সিনেমা কাছাকাছি release করতে পারে?

-post পুজোর পর situation কেমন থাকে, হলগুলোতে pressure কেমন থাকে, তার ওপর depend করছে। বেশ কিছু বড়ো বড়ো সিনেমা আসছে, সেই সব দেখে রতন সাহা, শতদী সাহা, produce করেছেন, তারা জানবেন ভালো কোন সময় আনা যায়।

-কথা বলে খুব ভালো লাগলো…

-আমি তো ভেবেছিলাম বেশ কঠিন কিছু প্রশ্ন হবে।

-না না Thank you so much, সময় দেওয়ার জন্য।

-okay, bye.

-হ্যাঁ। Thank you.

2nd Teaser of ‘Ami O Apu’ released on 15th August,2021

Follow us on FacebookTwitter

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here