mollar-jekhane-name-review-myo
mollar-jekhane-name-review-myo

Mallar Jekhane Naame-Addatimes:

সুত্রকার, স্বয়ং কিংবদন্তি কবি জয় গোস্বামী। দুই অভিনেতা দেবাশীষ সেনশর্মা ও কথা নন্দী, আর রোজকারের জীবন পালা থেকে নেওয়া তিন চারটে দিন। শুধু এই কটি উপকরণে তৈরি মোটামুটি কুড়ি মিনিটের এই শর্ট ফিল্ম পর্দায় দেখাটা একটা মস্ত বড় সমৃদ্ধি। পরিচালক জয়দীপ রাউত প্রায় দেড় বছর ধরে একটু একটু করে এই সিনেমা বানিয়েছেন। তাই সত্যি বলতে এই সিনেমার প্রতিটি শট, প্রতিটা লোকেশন একদম পারফেক্ট, পেছনে বিমূঢ় থেকেও নিজেদের মত করে গল্প বলে যায়। এই ছবির মাধ্যমে পরিচালক ‘Poetry Film’ এর রূপ বিশ্লেষণ করেছেন, যেখানে কাব্যিক সিনেমার ১৯২০ সালে উৎপত্তির আসল উদ্দেশ্য কি ছিল তাই কিছুটা নতুন করে বোঝাতে চেয়েছেন দর্শককে।

খুব ছোট করে বললে, এটি নামবিহীন কবির গল্প, হতে পারে সে জয় গোস্বামীর মত সর্ববিদিত, বা হতে পারে এমন একজন যে হয়তো হারিয়ে গিয়েছে জনসাধারণের ভিড়ে, কারণ লিটল ম্যাগাজিন ছাড়া আর কোনো কাগজ কোনোদিন তার নাম জানেনি। সেইদিক থেকে এই গল্প সবার। জীবনের একটা সময়ে আমাদের মধ্যে অনেকেই জীবনের মানে খুঁজতে কাব্য রচনার সাহায্য নিয়েছি। সময়ের সাথে চলতে চলতে অনেকেই নিজেদের মধ্যেকার সেই কবি সত্তা টাকে হারিয়ে ফেলেছি। সেই ‘Sense of loss’ যেনো এই সিনেমার জায়গায় জায়গায়। আমাদের হারানো ছন্দ, হারানো ভালোবাসা, যাকে আপনি অগ্রাহ্য করেন, আবার কল্পনাতে নিজের মত করে জায়গা দিয়ে দেন।

Mallar-Jekhane-Naame

অবশ্যই এই ধরনের উপস্থাপনায় অভিনেতাদের দক্ষতা অবশ্যই জরুরি। এর আগে অভিনেত্রী কথা নন্দীকে ‘অলৌকিক’এ দেখা গিয়েছে, কিন্তু দেবাশীষ সেনশর্মা কে প্রথমবারের জন্য পর্দায় দেখলাম। এই ছবির আর্ট ডিরেক্টর ও সিনেমাটোগ্রাফার কে অবশ্যই ধন্যবাদ, এটা বুঝিয়ে দেবার জন্য যে ভালো সিনেমা বানানোর জন্য সততা সব থেকে বেশি প্রয়োজন, বাজেট নয়। দর্শক কিন্তু উচ্চ বিষয়ের কনটেন্ট দেখতে তৈরি এখন শুধু নির্মাতাদের ভেবে দেখা বাকি।বি দ্রঃ:- এই সিনেমা মুক্তি পাওয়ার প্রায় ২ বছর পরে Addatimes এ ওটিটি রিলিজ পেয়েছে। তাই অলরেডী আমরা লেট। সেই কারণে এই indie film দেখতে আর বেশি বিলম্ব করা বাঞ্ছনীয় নয়!

Follow us on FacebookTwitter

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here